Breaking News

করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুহার বেড়েছে। ১২ বয়সউর্ধ্বদের টিকার আওতায় আনা হবে

করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুহার বেড়েছে। ১২ বয়সউর্ধ্বদের টিকার আওতায় আনা হবে

আগের দিন ৩৫ জনের প্রানহানী হয়েছে করোনা আক্রান্তে। and মৃত্যুর হার বেড়ে গিয়ে আজ মৃত্যু হয়েছে নতুন করে ৫১ জন। so
এই ৫১ জন সহ দেশে করোনায় মৃত্যু হলো ২৭০৫৮ জন ব্যাক্তির। and শুধু ঢাকা বিভাগেই রয়েছে ২০ জন মৃত্যু হওয়ার খবর। Because

কয়েক দিন আগেও এই হার ২ শতাধিক থাকলেও আস্তে আস্তে তা নেমে আসার কারনে
দীর্ঘদিন বন্ধ থাকা স্কুল কলেজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলিও খুলে দেয়া হয়েছে। so
এর মাঝে কিছুটা কম থাকলেও আক্রান্তের হার বেড়ে গেছে। and
গেলো ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ১৯০১ জন so এটি আগের দিনের তুলনায় বেশি। and

মোট আক্রান্ত হলো ১৫৩৬৩৪১ জন and নতুন সুস্থ হয়েছেন ৩৮৭৩ জন। and
আজ বুধবার সকাল ১০’টায় সংসদ অধিবেশন শুরু হইয় স্পিকার শারমিন শিরিনের সভাতিত্বে and
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানান দেশের ৮০ শতাংশ জনগনকে টিকার আওতায় আনা হবে। and

১২ বছরের উপরে সমস্ত স্কুল হাইস্কুল গার্লস স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের করোনার টিকার অধীনে আনা হবে। Because
সংসদে নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে কোভিড টিকা দান বিষয়ক এক প্রশ্নের উত্তরে সরকারের পরিকল্পনা and
নিজেদের টিকাদান কর্মসুচি নিয়ে কথায় এই কথা জানান। so

ধারাবাহিক ভাবে পর্যায়ক্রমে ১২ বছর থেকে তার অধিক বয়স্কদের এই টিকা দানের আওতায়
আনবে বলে সরকারের চিন্তাভাবনা ব্যাক্ত করেন। and
এই অধিবেশনে স্বাস্থমন্ত্রী জানান সাড়ে ১৬ কোটি ডোজ টিকা নেয়ার অর্ডার পাস করা হয়েছে so
সরকারের নেয়া উদ্যোগে সফল হয়েছেন বলে স্বাস্থমন্ত্রী আরো বলেন বিমান বন্দরে পিসিআর ল্যাব বসানো হবে ৩ থেকে ৫ দিনের মধ্যে but
এই দায়িত্ব প্রবাসী মন্ত্রণালয়ের।

প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগ দেয়ার জন্যও সরকার কাজ করছে

so প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগ দেয়ার জন্যও সরকার কাজ করছে। so
সর্বসাকুল্যে সবার সহযোগিতা দোয়া অংশগ্রহনে এই উদ্যোগ সফল ভাবে শেষ হবার আশা সবার মনেই। but
গত বছরের ৮ মার্চ থেকে প্রথম আক্রান্ত and তার ১০ দিন পরেই অর্থাৎ ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর খবর আসে বাংলাদেশে। but
সেই থেকে শুরু হয়ে এখনো থামতেই চাইছেনা মৃত্যুর মিছিল। but
দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে লাশের স্তুপ। and মৃত্যুর সংখ্যা দিন দিন হু হু করে বেড়ে চলছে।

but সম্প্রতি সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক বিভিন্ন দেশ থেকে আসা টিকার ডোজ দিয়ে যাচ্ছে জনগণকে। and
করোনার উর্ধ্বগতি থামাতে এই টিকার উদ্যোগ so এতে করোনার প্রাদুর্ভাব থামানোর প্রতিকার হওয়ার একটা চেষ্টা চলছে। so
অনেক জায়গায় অনেক দেশে লকডাউন কারফিউ দেয়া হলেও করোনায় থমকে যাওয়া বিশ্বের অর্থনৈতিক অবস্থা সচল করার লক্ষে সেসব বিধিনিষেধ তুলে দেয়া হয়েছে। and
তবু দিন শেষে সবার একটা কামনা থেমে যাক করোনা থমকে যাক মৃত্যুর ভয়াল থাবা and
লাশের সামনে কান্না গুলি মুছে যাক। but এই মৃত্যু দেখা যেনো বন্ধ হয়ে যায়।

About admin

Check Also

বাড়িতে ও টিভি অফিসে র‍্যাব অভিযানে হেলেনা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার

বাড়িতে ও টিভি অফিসে র‍্যাব অভিযান চালিয়ে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গ্রেফতার করেছে বৃহস্পতিবার রাতে আওয়ামী লীগ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *