Breaking News

আগামীকাল শুক্রবার থেকে লকডাউনে যা খোলা/বন্ধ থাকছে

Lock down / কাল থেকে লকডাউনে যা খোলা/বন্ধ থাকছে

মন্ত্রিপরিষদের নেয়া সিদ্ধান্ত মতে, আগামীকাল শুক্রবার থেকে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত এই বিধিনিষেধ চালু থাকবে।

শিল্পমালিকদের পক্ষ থেকে কারখানা মিল কারখানা চালু রাখার প্রস্তাব রাখা হলেও সরকার সেটি আমলে না নিয়ে মন্ত্রী পরিষদের সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়েছে।

করোনা নিয়ন্ত্রনে এপ্রিল মাস থেকে ধাপে ধাপে বিধিনিষেধ আরোপ করা হলেও করোনা নিয়ন্ত্রন করা যায়নি। because

সরকারের ঘোষণা মতে, ঈদ পরবর্তী লকডাউন চলাকালীন সময়ে (২৩ জুলাই-৫ আগস্ট) আগের বিধিনিষেধের because মতই সব সরকারি, আধা সরকারি, প্রাইভেট, বেসরকারি অফিস, সড়কপথ রেলপথ ও নৌপথে পরিবহন বন্ধ থাকবে একই সাথে অভ্যন্তরীণ উড়োজাহাজ সহ সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।
এই নিষেধাজ্ঞার সময়ে সরকারি কর্মচারীগন দাপ্তরিক কাজ ভার্চ্যুয়ালি সম্পন্ন করবেন। because

শপিং মল, মার্কেট ও সমস্ত দোকানপাট, শিল্পকারখানা, সমস্ত পর্যটনকেন্দ্র, প্রতিটা রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার and বিনোদন কেন্দ্র গুলিও বন্ধ থাকবে।

আইনশৃঙ্খলা ও জরুরি পরিষেবা চালু থাকবে। যেমন, কৃষিপণ্য উপকরণ, খাদ্যশস্য, খাদ্যদ্রব্য পরিবহন
and বিক্রি, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, করোনার টিকাদান, ফায়ার সার্ভিস, টেলিফোন, because

সরকারি বেসরকারি ইন্টারনেট গণমাধ্যম সহ নিরাপত্তাব্যবস্থা

সরকারি বেসরকারি ইন্টারনেট গণমাধ্যম সহ নিরাপত্তাব্যবস্থা, because ডাক বিভাগ, ব্যাংক, সিটি করপোরেশন and পৌরসভার পরিচ্ছন্নতা সহ জরুরি
অত্যাবশ্যকীয় সেবার সঙ্গে যুক্ত অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারী ও যানবাহন প্রাতিষ্ঠানিক পরিচয়পত্র প্রদর্শন মাফিক যাতায়াত করতে পারবে।

কাঁচাবাজার সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ৯টা থেকে বেলা ৩টা because পর্যন্ত স্বাস্থবিধি মেনে ক্রয়/বিক্রয় করা যাবে।
টিকা কার্ড প্রদর্শন করে টিকা গ্রহণের জন্য যাওয়া যাবে। খাবার দোকান, হোটেল-রেস্তোরাঁ সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খাবার
বিক্রি করতে পারবে অনলাইনে অথবা খাবার নিয়ে যেতে পারবে বাড়িতে।

আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু থাকলেও বিদেশগামী যাত্রীরা আন্তর্জাতিক ভ্রমণের টিকিট কিংবা প্রমাণপত্র দেখিয়ে যাতায়াত করতে পারবেন।

কোরবানির বিভিন্ন পশুর চামড়া পরিবহন, সংরক্ষণ and প্রক্রিয়াজাতকরণ ব্যাবস্থা এই বিধিনিষেধের আওতার বাইরে থাকবে। খাদ্য ও খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন ও প্রস্তুতকারক মিল কারখানা চালু সহ ওষুধ, অক্সিজেন ও কোভিড-১৯ প্রতিরোধে সরঞ্জামাদির জন্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য উৎপাদনকারী শিল্পও এই বিধিনিষেধের আওতার বাইরে থাকবে।

About admin

Check Also

কোভিড ১৯ করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশের আদ্যোপান্ত চিত্র

২০১৯ সালে চীনের হুবাই প্রদেশের উহান থেকে এক প্রকার ভাইরাস জনিত জীবানুর প্রকোপ হয়। যে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *