Breaking News

হেফাজতের বিরুদ্ধে সুবিধাজনক অবস্থায় সরকার।

হেফাজতের বিরুদ্ধে সুবিধাজনক অবস্থায় সরকার।

এতদিন সরকার হেফাজতের বিরুদ্ধে সুবিধাজনক অবস্থায় না থাকলেও মামুনুল হকের ঘটনায় সেই পরিস্থিতি পাল্টে গেছে।
এর আগে রাজধানীর দোলায় পারে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ ইস্যুতে হেফাজতে ইসলামের তীব্র বিরোধিতা থাকা সত্ত্বেও কিছুটা নমনীয় নীতি অবলম্বন করেছিল সরকার।

সরকারের একটি দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে হেফাজতে ইসলাম অরাজনৈতিক সংগঠন হলেও বর্তমানে বিভিন্ন ইস্যুতে তাদের রাজপথে সক্রিয় অবস্থান দেখা যাচ্ছে।

গত ডিসেম্বরে রাজধানীর দৌড়ায় পারে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণের হেফাজতে ইসলাম তীব্র বিরোধিতা করে বেশ কিছুদিন রাজপথে সক্রিয় ছিল তখন সরকার কিংবা সরকারি দল এমন একটি প্রতিক্রিয়া দেখায়নি।

কিন্তু মোদি বিরোধী আন্দোলন কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেনি সরকার সরকারের তরফ থেকে তাদের বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছিল।

বিভিন্ন মাধ্যমে বলা হয়েছিল ব্যক্তির নরেন্দ্র মোদিকে দাওয়াত দেয়া হয়নি, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান উপলক্ষে প্রতিবেশী দেশ হিসেবে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী দিনের হেফাজতে ইসলাম তীব্র বিরোধিতা করে বায়তুল মোকাররমসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আন্দোলন গড়ে তোলে।

মাওলানা মামুনুল হকের ঘটনার পর সরকার হেফাজতের বিরুদ্ধে খুব সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে এখনই অরাজনৈতিক ইসলামী এই সংগঠনটি লাগাম টেনে ধরা দরকার বলে মনে করছে সরকার এখনই রাশ টেনে না ধরলে সরকার বিরোধী দলগুলো সুযোগ নিতে পারে।

তখন রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও ভিন্ন দিকে মোড় নিতে পারে এসব বিবেচনা করেই এরই মধ্যে হেফাজতে ইসলামের শীর্ষ নেতাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের নামে সারাদেশে বেশ কয়েকটি মামলা হয়েছে।

শিশু বক্তা হিসেবে পরিচিত মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী সহ বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

পল্টন থানায় একটি মামলায় হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব আবদুল হক কেউ গ্রেফতার করার পরিকল্পনা চলছে তাকে গ্রেফতারের পর হেফাজতের নেতাকর্মীদের মধ্যে পরবর্তীতে কোন ধরনের প্রতিক্রিয়া হতে পারে সে বিষয়টি নিয়ে এখন মাঠ পর্যালোচনা চলছে।

ইতিবাচক-নেতিবাচক বিশ্লেষণ করে এবং প্রতিক্রিয়া ধরণ মাথায় রেখেই সামনের দিকে এগোতে চাই সরকার।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *